• সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ১০:৫২ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
ভেড়ামারায় নদী ভাঙ্গন কবলিত এলাকা পানি উন্নয়ন বোর্ডের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে সাথে নিয়ে পরিদর্শন করলেন এমপি কামারুল আরেফিন দৌলতপুরে জমির ভাগ না দিয়ে অন্যের কাছে লিজ দেওয়ার অভিযোগ  দুই বাংলায় যোগ এবং অ্যাকিউপ্রেসার এর জগতে অপর্ণা মিত্র ও ডাঃ মনা’র অবদান অনস্বীকার্য দ্বিতীয় UYSF ইন্ডিয়া ন্যাশনাল ইয়োগা স্পোর্টস চ্যাম্পিয়নশিপ মঞ্চে জ্বলে উঠলো স্বস্তিক অষ্টাঙ্গ একাডেমি নক্ষত্ররা কথাসাহিত্যিক সেলিনা হোসেন এর ৭৭তম জন্মদিন উদযাপন করলো ” জাতীয় নারী সাহিত্য পরিষদ” যুব জমিয়ত বাংলাদেশ সুনামগঞ্জ জেলা শাখার ৪১ বিশিষ্ট পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন পাবনায় জামায়াতের সেলাই মেশিন বিতরণ নড়াইলে মোটরসাইকেল-ট্রাক মুখোমুখি সংঘর্ষে স্কুলছাত্র নিহত ঈদুল আযহা উপলক্ষে রায়পুরাতে ভিজিএফ’র চাল বিতরণ…. শিক্ষা কর্মকাণ্ডে প্রশংসিত,রাজশাহী অঞ্চলের উপপরিচালক মাউসির (ডিডি)ডাঃশরমিন ফেরদৌস চৌধুরী।

খুলনার বিশিষ্ট সংগীত শিল্পী শেখ আব্দুস সালাম এর মৃত্যুতে খুলনা আর্ট একাডেমি গভীরভাবে শোকাহত

Muntu Rahman / ২৮ Time View
Update : মঙ্গলবার, ২১ মে, ২০২৪

নিজস্ব প্রতিবেদক

আমরা গভীর শোকাহত হয়ে জানাচ্ছি যে,খুলনা বেতারের তথা বাংলাদেশের বিশিষ্ট সংগীত শিল্পী, গীতিকার,সুরকার শেখ আব্দুস সালাম আজ ২০/৫/২০২৪ তারিখ রাত আটটায় হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে পূর্ব বানিয়াখামার, আরাফাত মসজিদ মোড়ে নিজ বাসভবনে ইন্তেকাল করেছেন, ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল আনুমানিক ৭৩ বছর। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী,এক পুত্র ,এক কন্যা, পোতাপৌত্র , নাতি-নাতনী সহ অসংখ্য ভক্ত, গুনগ্রাহী রেখে গেছেন। তাঁর জন্ম খুলনা জেলার কয়রা উপজেলার নাকলা গ্রামে। তার পিতার নাম মরহুম শেখ আব্দুল মালেক।
শেখ আব্দুস সালামের সংগীত জীবনের হাতে খড়ি তার মামা শেখ বাসারত আলী সাহেবের কাছে। তাঁর আরো সংগীত শিক্ষা গুরু ছিলেন সাধন সরকার ,শ্রী কালীপদ বাবু ,বাবু বিনয় কুমার রায়, ওস্তাদ মালেক চিশতী, সুখলাল ঠাকুর সহ বেশ কয়েকজন বিখ্যাত ওস্তাদ। পরবর্তীতে তিনি নিজেও সংগীতের ওস্তাদ হিসেবে অনেককে সংগীতের তালিম দেন।১৯৭০ সাল থেকে তিনি খুলনা বেতারের নিয়মিত শিল্পী হিসেবে কাজ করে আসছেন। বাংলাদেশ টেলিভিশন, রেডিও বাংলাদেশ কমার্শিয়াল সার্ভিস, ট্রান্সক্রিপশন সার্ভিস, দেশের বিভিন্ন উন্মুক্ত আসরে তিনি বহু সংগীত পরিবেশন করে ভূয়সি প্রশংসা ও শ্রোতাদের হৃদয় জয় করেন। সঙ্গীতজ্ঞ শেখ আব্দুস সালাম খুলনার বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক সংগঠন সুজলা সাংস্কৃতিক গোষ্ঠীর প্রতিষ্ঠাতা সুযোগ্য সভাপতি ছিলেন। তিনি খুলনা শিল্পকলা একাডেমির সদস্যও ছিলেন। সঙ্গীতজ্ঞ হিসাবে তিনি বহু পুরস্কারে ভূষিত হন তার মধ্যে ১৯৬৮ সালে খুলনা সরকারি বিএল কলেজ থেকে সংগীতে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করেন। ওই বছর তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তান আর্ট কাউন্সিল সংগীত প্রতিযোগিতায় তিনি প্রথম স্থান অধিকার করেন। ১৯৭৬ সালে খুলনা প্রদর্শনীতে তৎকালীন জেলা প্রশাসন শিল্পী শেখ আব্দুস সালামের নামে “সালাম রজনী” অনুষ্ঠিত হয় এবং তাকে ঐ অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে স্বর্ণপদ দেয়া হয়। ২০০৫ সালের আলীজ একাডেমীর পক্ষ থেকে তাকে সংবর্ধনা দেয়া হয়। এছাড়াও তিনি খুলনার বিভিন্ন সংগঠনের সাথে সংযুক্ত ছিলেন।
তাঁর ইন্তেকালে গভীর শোক ও শোকসন্তপ্ত পরিবার ও স্বজনদের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন, খুলনা আর্ট একাডেমির প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক চিত্রশিল্পী মিলন বিশ্বাস সহ তার সদস্য বর্গ। এছাড়াও জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম গবেষণা পরিষদের সভাপতি সৈয়দ আলী হাকিম সহ সকল সদস্য বর্গ, খুলনা সাহিত্য মজলিস,খুলনা সাহিত্য পরিষদ, গাঙচিল, আলীজ একাডেমী,খুলনা সাহিত্য সাংস্কৃতিক সংস্থা খুসাস সহ বিভিন্ন সংগঠন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category

Devoloped By WOOHOSTBD